ভারতে তৈরি ‘ব্রহ্মোস’ মিসাইল কিনতে লাইন দিয়েছে সাতটি দেশ!

অস্ত্র আমদানিতে শীর্ষে ভারত। তবে এবার রফতানিতেও বেশ কয়েক ধাপ এগিয়ে যাচ্ছে এই দেশ। ভারত ও রাশিয়ার তৈরি ক্রুজ মিসাইল ‘ব্রহ্মোস’ কিনতে উৎসাহ প্রকাশ করল সাতটি দেশ।

 

রাশিয়ান সংবাদ সংস্থা ‘স্পুটনিক’-এ প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, এইসব দেশগুলি তাদের এয়ারফোর্সের যুদ্ধবিমানে ব্যবহার করার জন্য এই মিসাইল কিনতে চাইছে। কিছুদিনের মধ্যেই ভারতীয় বায়ুসেনার Sukhoi 30-MKI থেকে পরীক্ষামূলক ভাবে উৎক্ষেপণ করা হবে এই মিসাইল। আর সেদিকেই নজর রেখেছে এইসব দেশগুলি।

ডিগ্রি ছাড়াই এই ১০ টি চাকরীতে মেলে মোটা মাইনে!

মধ্যবিত্তের পকেটে কোপ, আবার দাম বাড়লো রান্নার গ্যাসের!

শত্রুদের ঠেকাতে ভারতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার এই ব্রহ্মোস মিসাইল। ভারত ও রাশিয়ার মিলিত উদ্যোগে তৈরি এই মিসাইল শব্দের ৩ গুণ গতিতে ২৯০ কিলোমিটার পাড়ি দিতে পারে। শীঘ্রই এর রেঞ্জ বাড়ানো হয়ে বলেও জানা গিয়েছে। এটি ৩০০কেজি বিস্ফোরক বহনে সক্ষম। এটি বিশ্বের মধ্যে অন্যতম একটি মিসাইল যার হোমিং সিকার এতই উন্নত যে শত্রুপক্ষ জিপিএস জ্যাম করে দিলেও এটি নিজের লক্ষ্য অনায়াসে ভেদ করতে পারবে। এটির velocity এতই বেশি kinetic energy-র মাধ্যমে বিস্ফোরক ছড়াই একটা জাহাজকে বুলেটের মত এফোঁড়-ওফোঁড় করে দিতে পারে। রাজপুত ক্লাস ডেস্ট্রয়ার, কলকাতা ক্লাস ডেস্ট্রয়ার , বিশাখাপত্তনম ক্লাস ডেস্ট্রয়ার, শিবালিক ও তলোয়ার ক্লাস ফ্রিজেট এটি ব্যবহার করে। সম্প্রতি এই মিসাইল সিন সীমান্তে মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারত।

পরনে ২৫ কোটি টাকার শাড়ি; বিসর্জনে অসুবিধা সন্তোষ মিত্র স্কোয়ারে! দেখুন কি হলো তারপর ..

ব্রহ্মোস এরোস্পেসের মুখপাত্র প্রবীণ পাঠক জানিয়েছেন, ‘আমাদের কাছে সাতটি দেশের কাছ থেকে আবেদন এসেছে। এশিয়া-পেসিফিক, লাতিন আমেরিকা ও মধ্য-প্রাচ্যের এইসব দেশগুলিতে রয়েছে Su-30 যুদ্ধবিমান। আর সেইজন্যই এই মিসাইল কিনতে চাইছে তারা।’ টেস্ট-ফায়ার সফল হলেই এইসব দেশ মিসাইলটি কেনার জন্য লাইন দেবে বলেও জানান তিনি।

এপ্রিল কিংবা মে মাসে এই টেস্ট ফায়ার হবে বলে জানানো হয় ব্রহ্মোস এরোস্পেসের তরফ থেকে। গত বছর Su-30 MKI থেকে টেস্ট ফায়ার করা হয়। আরও দু-তিনটে ড্রপ টেস্ট প্রয়োজন বলেও জানা গিয়েছে। Su-30 MKI থেকে আরও দুটো টেস্ট ফায়ার করা হয়। এই মিসাইল ভারতীয় রপ্তানিকে কোন মাত্রায় পৌছে দেয় সেটাই দেখার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: