সাবধান! টাকার বদলে শহরের এটিএম থেকে বের হচ্ছে এই জিনিস; আপনি পেয়েছেন নাকি?

টাকা মাটি, মাটি টাকা। রামকৃষ্ণ পরমহংস দেবের এই গভীর অর্থের উক্তিটা, একটু অন্য রকম হয়ে ফিরে এল শহরতলীর এক এটিএমে। এটিএম বিতর্কে এবার নয়া সংযোজন এবার ব্রাউন পেপার। বালির একটি এটিএম থেকে টাকার বদলে বের হয়েছে ব্রাউন পেপার। ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার এটিএমে এই টাকা বিভ্রাট। এটিএম জালিয়াতি তো ছিলই, এবার এটিএম থেকে বের হওয়া নোটেই বিভ্রাট। ২ হাজার টাকার নোটের বদলে এটিএম থেকে বার হল একই আকারের একটি ব্রাউন পেপার। তাজ্জব বনে গেলেন গ্রাহক।

বুধবার সকালে হাওড়ার বালি বাজারের ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার এটিএমে টাকা তুলতে যান বিজয় পাণ্ডে নামে এক ব্যক্তি। তাঁর ৬ হাজার টাকা তোলার কথা ছিল। নির্দিষ্ট নিয়ম মেনেই কার্ড সোয়াইপ করেন তিনি। কিন্তু দুটি ২ হাজার টাকার নোট বেরোলেও, একটি একই সাইজের ব্রাউন পেপার বের হয়। বিজয়ের দাবি, ব্রাউন পেপারটি দুটি দু’হাজেরর নোটের মাঝখানে এমনভাবে ছিল যে এক নজরে তা বোঝা দুস্কর। টাকা গুনে নেওয়ার সময়ই বিষয়টি নজরে পড়ে তাঁর। এরপরই ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানান বিজয় পাণ্ডে। বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, পরপর এটিএম জালিয়াতিতে উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মানুষের দুর্ভোগের বিষয়টি নিয়ে সংসদে সরব হবেন তৃণমূল সাংসদরা, জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এদিন বলেন, ‘মানুষের আর্থিক নিরাপত্তা নেই। নোটবন্দির পর থেকেই চলছে দুর্ভোগ। প্লাস্টিক মানির কথা বলছে। অথচ অধিকাংশ জায়গায় ব্যাঙ্কের শাখা নেই। এই অবস্থায় সব ডিজিটালাইজেশন করতে চাইছে।’এটিএম প্রতারণার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হওয়া উচিত বলেএটিএম প্রতারণায় মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রীর ৷ অর্থমন্ত্রকের কার্যকারিতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি ৷ গত কয়েকদিনের ঘটনায় এটিএম আতঙ্ক কলকাতা জুড়ে ৷

প্রতারিত বহু মানুষ ৷ গায়েব লাখ লাখ টাকা ৷ রাষ্ট্রায়ত্ত হোক বা বেসরকারি ব্যাঙ্ক, সাধারণ মানুষের টাকা কি আদৌ সুরক্ষিত? সব তথ‍্য প্রতারকরা হাতিয়ে নেয়নি তো? এটিএম থেকে হঠাৎ করে টাকা গায়েব হয়ে যাবে না তো? এই সব চিন্তাতেই সকলের ঘুম উড়েছে। অনেকে তো এটিএম থেকে টাকা তুলতেই ভয় পাচ্ছেন। এটিএম জালিয়াতিকাণ্ডে বুধবার আরও তিন জন রোমানিয়ানকে গ্রেফতার করেছেন তদন্তকারীরা।

তারা মূলত মুম্বইয়ের বাসিন্দা। তাদের কাছ থেকে ল্যাপটপ, স্কিমার, অত্যাধুনিক ক্যামেরা উদ্ধার হয়েছে। জেরায় জানা গিয়েছে, এই তিন জনই কসবার এটিএম কাউন্টারে স্কিমার লাগিয়েছিল। এছাড়া নিউমার্কেট চত্বরের একটি এটিএমেও স্কিমার লাগিয়েছিল। সেখান থেকে তথ্য চুরি করেছিল তারা। যদিও ওই এটিএমে সোয়াইপড কার্ড থেকে টাকা তুলতে পারেনি এই তিন যুবক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: