যাত্রী নিরাপত্তায় রাজ্যের বাসগুলিতে বসতে চলেছে সিসিটিভি ক্যামেরা

এবার বাসেও বসবে সিসিটিভি ক্যামেরা। না, এ রাজ্যে নয়, রাজধানী দিল্লির বাসগুলিতে  যাত্রী নিরাপত্তায় এমনই পদক্ষেপ নেওয়ার দাবী করেছে কেজরীওয়াল সরকার। তবে দাবী করা হয়েছে মূলত বাসগুলিতে যাত্রী নিরাপত্তায় বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়ার দাবিতে দায়ের হওয়া একটি পাবলিক লিটিগেশন বা পিটিশন দায়েরের ভিত্তিতে। নির্ভয়া কান্ডের পরেও দিল্লীর বাসগুলিতে যে যাত্রী নিরাপত্তা যথোপযুক্ত ছিলনা তা একাধিক ঘটনায় সামনে আসে এবং মামলাও দায়ের হয় দিল্লি হাইকোর্টে।

মনীশ কুমার নামে এক ব্যক্তি মামলাটি দায়ের করেন এবং তিনি নিজে ভুক্তভোগী দিল্লী বাসের যাত্রী নিরাপত্তার ঢিলেমিতে। গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে বাসে যাত্রা করার সময় তাঁর ল্যাপটপ চুরি হয়ে যায়৷ চোর কে বুঝতে পেরেও তাকে ধরতে পারেননি কারণ চেপে ধরতেই ছুরি বের করে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে বাসের মধ্যেই এবং সুযোগ বুঝে বাস থেকে পালিয়ে যায় মনীশের ল্যাপটপ সহ। এর ভিত্তিতেই মনীশ কুমার দিল্লী হাইকোর্টে পাবলিক লিটিগেশনটি করেন যার শুনানি ছিল আজ।

দিল্লি হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি রাজেন্দ্র মেনন ও বিচারপতি ভি কে রাওয়ের ডিভিশন বেঞ্চে বসা এই মামলায় আজ অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সরকার জানায় রাজধানীর বাসগুলিতে সিসি ক্যামেরা বসতে চলেছে এবং সে বিষয়ে সরকারি দপ্তর থেকে দরপত্রও জারী হয়ে গেছে ইতিমধ্যেই। ডিভিশন বেঞ্চকে রাজ্য সরকারের  আইনজীবী গৌতম নারায়ণ জানিয়েছেন, দিল্লি পরিবহণ নিগমের সমস্ত বাসে আগামী বছর মে মাসের মধ্যে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হবে৷ এবং আশা করা যাচ্ছে আগামী বছর মে মাসের মধ্যে পরিবহণ নিগমের সব বাসগুলি ক্যামেরার নজরদারির আওতায় চলে আসবে৷

তবে এত কিছুর পরেও রাজধানী দিল্লীতে যাত্রী নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায় যেমন থেকে যায় সরকারী বাসে দূষন নিয়ন্ত্রনের প্রশ্নটিও। নির্ভয়া কান্ডের পরও দিল্লীর রাস্তায় এবং বাসে একাধিক ধর্ষণ ও অপরাধমূলক কাজকর্ম চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় রাজধানী দিল্লির ওপরের চাকচিক্যের আড়ালে লুকিয়ে থাকা নিরাপত্তাহীন ভাঙা কাঠামোটাকে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: