মাঝেরহাট ব্রিজ ভাঙা নিয়ে যে কথা বলে দায় এড়ানোর চেষ্টা করলেন মমতা ব্যানার্জি

দার্জিলিং থেকে কলকাতা বিমানবন্দরে নেমে সোজা মাঝেরহাট ব্রিজের উদ্ধার কাজ দেখতে ঘটনাস্থলে পৌঁছন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোলপাধ্যায়। তিনি বুধবার সন্ধ্যা ছ’টায় কলকাতা বিমান বন্দরে এসে পৌঁছন তিনি। সেখান থেকে বাইপাস ঘুরে মা উড়ালপুল ধরে তিনি ঠিক ছ’টা পয়ত্রিশ মিনিটে মাঝেরহাট ব্রিজে এসে পৌঁছন।

 

ন্ধে ৬টায় কলকাতা বিমানবন্দরে অবতরণ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখান থেকে মা উড়ালপুল ধরে সোজা ঘটনাস্থলে পৌঁছে। দুর্ঘটনাস্থল খতিয়ে দেখেন। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়,”সময়ে সময়ে পরিকাঠামো দেখার কাজ করেছি। এই সেতুটি ৫৪ বছরের পুরনো। অনেকক্ষেত্রেই কাগজপত্র থাকে না। কাগজপত্র পেতেই হিমশিম খেতে হয়। বিবেকানন্দ উড়ালপুল ভেঙে পড়ার পর এমন অভিজ্ঞতা হয়েছিল। মেট্রোর কাজ চলছিল। পাইলিংয়ের কাজ চলার সময়ে মনে হত যেন ভূমিকম্প হচ্ছে”।

 

তাঁর সঙ্গে ছিলেন কলকাতা পুলিশের কমিশনার রাজীব কুমার, পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, পূর্বতন ডিজি সুরজিৎ কর পুরকায়স্থ। মুখ্যমন্ত্রী রাজীব কুমারের কাছে বিস্তারিত শোনেন ঠিক কী ভাবে মঙ্গলবার কখন সেতুটি ভেঙে পড়ে। মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের কাছেও গোটা ঘটনা তিনি বিস্তারিত শোনেন। সেখান থেকেই পুলিশ কর্তাদের কিছু নির্দেশ দেন তিনি। পাশাপাশি উদ্ধার কাজ কতটা এগিয়েছে সেটাও খোঁজ নেন।মাঝেরহাটে সেতুর একাংশ ভেঙে পড়ার ঘটনার সঙ্গে মেট্রোর উড়ালপুল নির্মাণকাজের দায় নেই বলে প্রাথমিক রিপোর্টে জানিয়েছে রাইটস।

রাইটসের রিপোর্ট নিয়ে নাম না করেই উষ্মাপ্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী। জানিয়ে দিলেন, সেতু ভাঙার সঙ্গে মেট্রোর নির্মাণকাজের যোগ উড়িয়ে দেওয়া উচিত নয়। মাঝেরহাটে দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ”এখানে মেট্রো রেলের কাজ চলছিল। পাইলিংয়ের কাজ চলার সময়ে মনে হত ভূমিকম্প হচ্ছে। আমরা কলকাতা মেট্রোর কাজ চলার সময়েও এটা দেখেছি। এটা বাস্তব। কোনও দিক ছোট করতে চাই না। কোনও দিককে ছোট করে এক দিনেই মূল জায়গা থেকে সরে আসতে চাই না”।

এদিন সেতুর উপরে উঠে ভাঙা অংশের পাশে দাঁড়িয়ে দুর্ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেন মুখ্যমন্ত্রী। কীভাবে সেতুর একটা অংশ ভেঙে পড়ল, তা পুলিস কমিশনার রাজীব কুমার কাছে জেনে নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা পুলিসের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরাও রয়েছেন ঘটনাস্থলে। মুখ্যমন্ত্রী সঙ্গে রয়েছেন পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ ও অরূপ বিশ্বাস। এর পাশাপাশি উদ্ধারকাজ কোন পর্যায়ে রয়েছে, সে বিষয়েও খোঁজখবর নেন তিনি। বৃহস্পতিবার জরুরি বৈঠকের ডাক দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: