তুলসীপাতার গুণাগুন : জেনে দিন এই খানে !

আজকের দ্রুত জীবন যাপনে মানুষের রোগভোগও বেশি এবং তার সাথে পাল্লা দিয়ে চলেছে এলাপেথিক চিকিসার বাড়বাড়ন্ত।অথচ আমাদের হাতের কাছেই রয়েছে সহজলভ্য ও উপকারী বহু ভেষজ উদ্ভিদ যার সঠিক ও নিয়মিত ব্যবহারে শুধু দেহ নিরোগ নয়, স্বাস্থ্যের সার্বিক উন্নতি হওয়ায় সম্ভব। তেমনই একটি ভেষজ হল তুলসী গাছ। তুলসীর উপকারিতা কেবল জীবানুনাশক হিসেবেই নয় তুলসীর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমানে এন্টিঅক্সিড্যান্ট যা ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক। তুলসীর ব্যবহারে কয়েকটি নিত্যনৈমিত্তিক রোগভোগ থেকে কিভাবে দূরে থাকা যায় তা জানানো হল-

১- সংক্রমনের চিকিৎসায় তুলসীর গুণ অসাধারন। কাঁটা ছেঁড়া দ্রুত শুকোতে সাহায্য করে তুলসী এবং সাথে সাথে ইনফেকশন ছড়াতে বাধা দেয়।

২- কাশি হলে দু চারটি তুলসী পাতা মধু মিশিয়ে সকালে ঘুম থেকে উঠে খেয়ে নিন ,ম্যাজিকের মত হালকা খুসখুসে কাশি গায়েব এবং সাথে বুকের কফও নিয়মিত তুলসী সেবনে সেরে যেতে পারে।

৩- ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য তুলসী জীবনদায়ক। তুলসী সেবনে প্রয়োজনয় ইনসুলিন সরবরাহ হয় ফলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে থাকে।

৪- শরীরের কোন অংশ পুড়ে গেলে তুলসীর রস ও নারকেলের তেল ফুটিয়ে লাগান। জ্বালাপোড়া কমে যাবে এবং পোড়া দাগও কিছুদিনের মধ্যে শুকিয়ে উঠে যাবে।

৫- ক্যানসার রোধেও তুলসী উপকারী। তুলসীতে রয়েছে প্রচুর এন্টিঅক্সিড্যান্ট। যা টিউমার প্রতিরোধে সাহায্য করে।

৬- মাথাব্যথা দূর করতে তুলসীর রস বেশ ভাল কাজ করে বিশেষ করে মাইগ্রেনের রোগীদের জন্য প্রতিদিন তুলসীপাতা খেলে লাভ পাওয়া যায় ।

৭- ২৫০ গ্রাম দুধ বা ১৫০ গ্রাম জলের সাথে তুলসী পাতার রস মিশিয়ে খেলে প্রসাবের জ্বালা কমে যায় এবং তুলসীর রস কিডনির পাথর সারাতেও কাজে লাগে ।

৮- ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায় তুলসী এবং বলিরেখা দূরে রাখতে সাহায্য করে মুখে যদি একটি করে তুলসী পাতা মেখে লাগান।

৯- শরীরে কোনরকম ঘা হলে ফিটকিরি ও তুলসী পাতা একসাথে মেখে লাগান খুব ভাল উপকার পাওয়া যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: