লোকসভা ভোটের আগে মোদীকে চিন্তায় রাখবে এই পাঁচটা বিষয়

ভারতের রাজস্থানে সদ্য সমাপ্ত তিনটি উপনির্বাচনে বিজেপি পরাজিত হয়েছে – এ নিয়ে সেদেশের জাতীয় সংবাদমাধ্যমগুলিতে যথেষ্ট চর্চা হচ্ছে। হওয়ার কথাও, কারণ দীর্ঘদিন ধরে বিজেপি শাসিত ওই রাজ্যে এবছরই রয়েছে বিধানসভার নির্বাচন। কিন্তু, একই সঙ্গে ফল ঘোষিত হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের দুটি উপনির্বাচনেরও। বিজেপি সেখানেও হেরেছে, কিন্তু দ্বিতীয় স্থান দখল করতে সমর্থ হয়েছে। মহেশতলাতেও দ্বিতীয় বিজেপি। কিন্তু ২০১৯ -এর আগে যে বিষয়গুলি বিজেপিকে চিন্তায় রাখবে সেগুলি একবার দেখে নেওয়া যাক –

৫) জ্বালানী তেলের ক্রমবর্ধমান দাম


মাত্র ৭ পয়সা দাম কমেছে আজ। কিন্তু বিরাম নেই জ্বালানির দাম বৃদ্ধিতে। টানা ১৬ দিন নাগাড়ে বেড়ে কলকাতায় ৮১ টাকা ছাড়াল পেট্রোলের দাম। সঙ্গে ডিজেলের দরেও উর্ধ্বগতি অব্যহত। মঙ্গলবার কলকাতায় ১ লিটার পেট্রোল বিক্রি হচ্ছে ৮১.০৬ টাকায়। এক লিটার ডিজেলের দাম ৭১.৮৬ টাকা। এই নিয়ে টানা ১৬ দিন বাড়ল পেট্রোল – ডিজেলের দর। লাগাতার জ্বালানির দাম বাড়ায় বাড়তে শুরু করেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম। ইতিমধ্যে ট্রাক ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন ট্রাকমালিকরা। বাঁধা বাজেটে সংসার চালাতে নাভিশ্বাস গৃহিনীদের। কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তাঁরা।

৪) বিজেপি নেতাদের বিতর্কিত মন্তব্য ও কার্যকলাপ

বিজেপি নেতাদের বারবার বিতর্কিত মন্তব্যে বেশ ব্যাকফুটে বিজেপি। যেমন উদাহরণ হিসবে বলা যায়, মুসলমানদের ভারতে থাকা উচিত নয়। তাদের পাকিস্তান অথবা বাংলাদেশে চলে যাওয়া উচিত। এমনই বিতর্কিত মন্তব্য করে ফের শিরোনামে এলেন বিজেপি নেতা বিনয় কাটিয়ার। শুধু তাই নয়, বিনয় আরও বলেছেন, কেউ বন্দে মাতরম না বললে, জাতীয় পতাকার অপমান করলে অথবা পাকিস্তান পতাকা উত্তোলন করলে তাদের আইন করে শাস্তি দেওয়া হোক। এর আগে এআইএমআইএম নেতা আসাউদ্দিন ওয়াইসি দাবি করেন, কেউ ভারতীয় মুসলমানদের পাকিস্তানি বললে তিন বছরের জেলের সাজা করা হোক। তারপরই বিনয়ের মন্তব্য সামনে এসেছে।
দুদিন আগেই বিনয় কাটিয়ার আগ্রার তাজমহলের নাম বদলে খুব শীঘ্রই তেজ মন্দির করে দেওয়া হবে বলে দাবি করেছেন।

৩) শীর্ষ নেতৃত্বের ওপর চাপা ক্ষোভ, নিচু স্তরে আত্মতুষ্টি

একদিকে গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব তো অন্য দিকে আরএসএসের চাপ। দলের নীচু তলার কর্মীরা যখন প্রতিদিন তৃণমূলের মার খাচ্ছে, তখনই ওপর তলায় নীরবতা। কী করবেন বিজেপি কর্মীরা? কর্মীদের কি নির্দেশই বা দেবেন রাজ্য নেতৃত্ব? রীতিমতো দিশেহারা দশা বিজেপির। এটা বিজেপির মাইনাস পয়েন্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: